নবজাগরণ বলতে কি বোঝায়? বাংলার নবজাগরণ এ রাজা রামমোহন রায়ের অবদান সম্পর্কে আলোচনা করো।

নবজাগরণ বলতে কি বোঝায়?

ঊনিশ শতকে বাংলায় আধুনিক পাশ্চাত্য শিক্ষার প্রভাবে বাংলার শিক্ষা, সংস্কৃতি, শিল্পকলা, রাজনীতি, ধর্ম, সমাজ প্রভৃতি ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব অগ্রগতি লক্ষ্য করা যায় । এই অগ্রগতি সাধারণভাবে ‘ঊনিশ শতকে বাংলার নবজাগরণ’ নামে পরিচিত । রেনেসাঁস (Renaissance) কথাটির আক্ষরিক অর্থ হল জাগৃতি বা নবজাগরণ । এর ফলে বাংলার মধ্যযুগের অবসান এবং আধুনিক যুগের সূচনা ঘটে । ১৮১৩ খ্রিস্টাব্দের সনদ আইন (Charter Act of 1813) চালু হওয়ার সময় থেকে নবজাগরণের পূর্ণ অগ্রগতি ঘটে । তবে এর অনেক আগে থেকেই নবজাগরণের ক্ষেত্র প্রস্তুত হতে থাকে । নবজাগরণের এই পূর্ব যুগকে ‘নবজাগরণের বীজবপনের যুগ’ বলে উল্লেখ করা হয় । ১৭৭৪ খ্রিস্টাব্দে বাংলায় নতুন কাউন্সিল এবং সুপ্রিমকোর্টের প্রতিষ্ঠার পর থেকে মূলত এই বীজবপনের যুগ শুরু হয় । পাশ্চাত্য শিক্ষায় শিক্ষিতগণ অনুসন্ধানী মন ও যুক্তিতর্কের দ্বারা সবকিছুর মূল্যায়ন শুরু করেন । চিরাচরিত শাস্ত্রের নতুন ব্যাখ্যা, নীতিশাস্ত্রের ও ধর্মশাস্ত্রের নতুন মূল্যায়ন শুরু হয় । শিক্ষা, সংস্কৃতি, ধর্ম, সমাজ সমস্ত ক্ষেত্রে এক অভাবনীয় জাগরণ শুরু হয় । যা এক কথায় নবজাগরণ নামে পরিচিতি পায় । নবজাগরণ বলতে শুধু প্রাচীন দেশীয় ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির নতুন মূল্যায়ন প্রচেষ্টাকে বোঝয় না । ইংরেজি শিক্ষার বিস্তার ও ইউরোপীয় সংস্কৃতির স্পর্শে বাঙালি আত্মসচেতন হয়ে ওঠে । পাশ্চাত্য শিক্ষায় শিক্ষিত বাঙালি পাশ্চাত্যের সাহিত্য, দর্শন, রাজনীতি, অর্থনীতি, বিজ্ঞান প্রভৃতি বিষয়ে সম্যক ধারণা লাভের জন্য ব্যাকুল হয়ে ওঠে । বাঙালি নিজের ধর্মীয় সামাজিক ত্রুটিবিচ্যুতি এবং সাম্রাজ্যবাদী ব্রিটিশ শাসনের চরিত্র সম্বন্ধে সচেতন হয়ে ওঠে । ইতালির নবজাগরণ সঙ্গে তুলনা করে অনেকে বাংলার এই জাগরণকে ‘বঙ্গীয় নবজাগরণ’ বা ‘Bengal Renaissance” নামে অভিহিত করেন ।

বাংলার নবজাগরণ এ রাজা রামমোহন রায়ের অবদান

বাংলার নবজাগরণ এ রাজা রামমোহন রায়ের অবদান
1st Page
বাংলার নবজাগরণ এ রাজা রামমোহন রায়ের অবদান
2nd Page
বাংলার নবজাগরণ এ রাজা রামমোহন রায়ের অবদান
3rd Page
বাংলার নবজাগরণ এ রাজা রামমোহন রায়ের অবদান
4th Page

Spread the love